1. akashmarma112233@gmail.com : Mong Sing Thowai CH News Room : Mong Sing Thowai CH News Room
  2. akhternet33@gmail.com : Akhter Hosen barishal : Akhter Hosen barishal
  3. abdullahhaque51@gmail.com : Barishal News Room : Barishal News Room
  4. syedmonir1985@gmail.com : DAINIKPOTRIKA :
  5. jabedul30@gmail.com : Chattogram News Room : Chattogram News Room
  6. sheikhmdroman94@gmail.com : Khulna News Room : Khulna News Room
  7. fokironikali5@gmail.com : Mostafezur Rahman Rajshahi : Mostafezur Rahman Rajshahi
  8. smdanismia@gmail.com : Mymensingh NewsRoom : Mymensingh News Room
  9. nazmulislam148@gmail.com : Najmul Islam News Room : Najmul Islam News Room
  10. monjurulinfo6@gmail.com : Rajshahi News Room : Rajshahi News Room
  11. ashiqchatra@gmail.com : Rangpur News Room : Rangpur News Room
  12. dainikpotrikabdnewsdesk@gmail.com : Sherpur News Room : Sherpur News Room
  13. pintuadhikari38@gmail.com : Sylhet News Room : Sylhet News Room
অণু গল্প- শ্রাবণের রাত - দৈনিক পত্রিকা
মঙ্গলবার, ০৪ অগাস্ট ২০২০, ১০:১৮ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ

আগামী ২১ অক্টোরব ২০২০ রোজ বুধবার দৈনিক পত্রিকার প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী সফল হোক।।

 

অণু গল্প- শ্রাবণের রাত

লেখকঃ এম রোমান আহমেদ-হালুয়াঘাটঃ
  • প্রকাশ কালঃ বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই, ২০২০
  • ১২০ বার দেখা হয়েছে

শ্রাবণ মাসের ঘন কালো অন্ধকার রাত।চারদিকে ঝিঝি পোকা ডাকছে। আকাশে মেঘ ক্রমশ ঘনীভূত হয়ে আসছে। বাতাসে ভেজা মেঘের লুপ্ত ঘ্রাণ ও শীত শীত অনুভূতি নিয়ে জয়ন্তু ক্রমশ দ্রুত হাটছে । পাড়া গাঁয়ের মাঝ দিয়ে বাড়ি ফেরার এই একটি মাত্রই মাটির রাস্তা। দুইপাশে চট-লাগানো দোবরা ঘাস। মাটির শীড় ধরে খুব অনুমানেই পা ফেলতে হচ্ছে জয়ন্তুকে। মনে মনে ভাবনার অন্তি নেই বাড়ি ফেরার।

কোন প্রকার ভয় ভীতি ছাড়াই শুপ্রাদের বাড়ির পিছনে এসে হুট করেই থেমে গেলো জয়ন্তু। শুপ্রা জয়ন্তুর সহপাঠী ছিলো। তিন বছর হলো গত হয়েছে। দেখতে সুনিপুণ মিষ্টি মেয়ে ছিলো শুপ্রা। তাঁদের বাড়ির দক্ষিণ পাশটায় ঘন বাঁশ ঝাড়ে ঘেরা। বাঁঁশ ঝাড়ের নিচ দিয়ে যাওয়ার সময় হুট করেই জয়ন্তুর গা কাটা দিয়ে উঠলো। সে খুব সহজেই অনুভব করতে লাগলো কেউ যেন তাঁর পিছুপিছু পা মিলিয়ে হেটে আসছে। জয়ন্তু পিছু না তাঁকিয়ে দ্রুত হাটতে চাইলেও তা হয়ে উঠছে না। সে হাটছে আর ভাবতে বাধ্য হচ্ছে কেউ যেন তাঁর গায়ে হাত রাখবে রাখবে এমন উপক্রম।

এরি মাঝে একটা ছোট আলো এসে জয়ন্তুর গা গেসে বিপরীত দিয়ে যেতে লাগলো। কে – কে ওখানে ? এমন প্রশ্ন করতেই একটা মেয়েলী হাসি বাতাসে ভাসছে। হাহাহাহা…….

এখন দু একটা বিদ্যুৎ চমকাচ্ছে আকাশে।আচমকা বিদ্যুৎ চমকানোর আলোতে খুলা ঝলমলে চুল এলিয়ে কে যেন যাচ্ছে, পিছু তাঁকিয়েই দেখতে পেলো জয়ন্তু। জয়ন্তু বিষ্ময় ও ভয়ার্ত কন্ঠে জিজ্ঞেস করলো,ওখানে কে ? বলতেই দাঁড়িয়ে গেলো পাশ কাটিয়ে যাওয়া আলোটা এবং মুখোমুখি তাঁকাতেই বিকট বজ্রপাতের শব্দ ! জয়ন্তুর চোখ বন্ধ হয়ে এলো।

-চোখ খুল জয়ন্তু,আমি শুপ্রা। চিনতে পাচ্ছ না তুমি আমাকে। বলতে বলতে এক-পা, দু-পা করে জয়ন্তুর কাছে আসতে লাগলো শুপ্রা। তাৎক্ষণিক জয়ন্তু ভুলে গেলো বিগত তিন বছর।এখন শুপ্রা আগের থেকেও মায়াবী। মেয়েদের আধো-আলোতে এমন মায়াবী লাগে জয়ন্তু তা আগে কখনো জানতো না। সে মুগ্ধ হয়ে কথা বলতে লাগলো বিগত শতাব্দীর সাথে। শুপ্রাও খুব আগ্রহ নিয়ে কথা বলছে। রাত কিংবা অন্ধকার বলে পৃথিবীতে কিছু নেই। প্রিয় মুহূর্তগুলো অনুভব করতে লাগলো শুপ্রা ও জয়ন্তু । অভিরাম চলছে কথা। ওদের কথা আর ফুরালো না। পৃথিবীর নিয়মে সকাল হয়ে এলো।

রাতভর বৃষ্টি ভেজা হয়ে রাস্তার পাশে পরে থাকা জয়ন্তুকে গ্রামবাসী বাড়ি ফেরানোর চেষ্টায় ব্রত। তবুও জয়ন্তুর কথা বলা শেষ হচ্ছে না।ক্রমাগত কথা বলে যাচ্ছে। হাসছে। প্রশ্ন করছে, উত্তর দিচ্ছে। এর আগে এই গ্রামের কেউ জয়ন্তুকে এত শুদ্ধ শব্দ চয়নে বিরতিহীন কথা বলতে শুনেনি।

গুরুত্বপূর্ণ সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© সর্বস্বত্ত্ব ২০১৯-২০২০
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardainikp1
ছিঃ ছিঃ নকল করোনা!