1. alaminshorkar76@gmail.com : Al-Amin Shorkar : Al-Amin Shorkar
  2. fokironikali5@gmail.com : Mostafejur Rahman : Mostafejur Rahman
  3. Najmul121v@gmail.com : Najmul Islam : Najmul Islam
  4. syedmonir1985@gmail.com : DAINIKPOTRIKA :
  5. ashiqchatra@gmail.com : Asiqur Rahman : Asiqur Rahman
  6. Pintuadhikari38@gmail.com : Pintu Adhikari : Pintu Adhikari
  7. shamim1999ad@gmail.com : Shamim Hasan : Shamim Hasan
  8. akashmarma112233@gmail.com : Akash Marma : Akash Marma
  9. syedmonir2019@gmail.com : NAZMUL ALAM : NAZMUL ALAM
  10. jabedul30@gmail.com : Jabedul bhuya : Jabedul bhuya
বগুড়ায়  অটোরিকশা চালককে খুন করে খুনির নাটকীয়তা - দৈনিক পত্রিকা
রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০৭:১০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ
####দেশ সেরা ইভেন্ট আয়োজক সম্মাননা ####দৈনিক পত্রিকার প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ২০২০ উপলক্ষে দেশে এবং দেশের বাইরে সকল প্রতিনিধি,লেখক,কলামিস্ট ক্যাম্পাস প্রতিনিধিসহ সকল পাঠকগন তাদের একক অংশগ্রহনে নিজেদের অবস্থান থেকে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে পালন করবে দৈনিক পত্রিকার প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী । পরবতীতে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎযাপন শেষে যাদের অনুষ্ঠান সবচেয়ে বেশি সুন্দর ও ভিন্ন হবে তাদের মধ্য থেকে দেশ সেরা ইভেন্ট আযোজক করা হবে এবং তাদের প্রদান করা হবে দেশ সেরা সম্মাননা সূচক ।                                    
 

বগুড়ায়  অটোরিকশা চালককে খুন করে খুনির নাটকীয়তা

এমদাদুল হক
  • প্রকাশ কালঃ বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৭ বার দেখা হয়েছে

,

বগুড়ার শেরপুরে ঘাতকের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী নিখোঁজ হওয়ার দুইদিন পর অটোরিকসা চালক মো. মিনহাজ উদ্দীনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (০১অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের জোরগাছা এলাকাস্থ ফসলি মাঠের একটি ধানক্ষেত তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। এসময় ছিনিয়ে নেয়া অটোরিকশাটিও উদ্ধার করা হয়।

 প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপি চলা এই লাশ উদ্ধার অভিযানের নেতৃত্ব দেন জেলার পুলিশ সুপার মো. আলী আশরাফ ভূঞা। এসময় জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. গাজিউর রহমান, শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম আবুল কালাম আজাদসহ পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। নিহত ওই অটোরিকসা চালক মিনহাজ জেলার ধুনট উপজেলার চৌকিবাড়ি ইউনিয়নের বিশ্বহরিগাছা গ্রামের মো. মোজদার আলীর ছেলে।

 এরআগে গত ২৯সেপ্টেম্বর সকালের দিকে অটোরিকসা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন তিনি। এদিকে অটোরিকসা চালক মিনহাজকে হত্যার পর তাঁর লাশ গুম করে ছিনতাইয়ের নাটক মঞ্চস্থ করেন ঘাতক মো. রাব্বী হাসান (২৫)। এমনকি নিজেই ৯৯৯-ফোন করে তারা ছিনতাইয়ের কবলে পরে আহত হয়েছেন বলে দাবি করে ঘটনা জানায়। একইসঙ্গে চিকিৎসার জন্য শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি হন। পরবর্তীতে থানায় অভিযোগ করতে যান তিনি। কিন্তু তার বক্তব্য ও কর্মকাণ্ড সন্দেহজনক মনে হওয়ায় তাকে আটক করা হয়। ঘাতক রাব্বী হাসান একই উপজেলা ও ইউনিয়নের বোহালগাছা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।

 জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. গাজিউর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, অটোরিকসাটি ছিনিয়ে নিতেই মিনহাজকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তাই আগে থেকেই ক্রেতাও ঠিক করে রেখেছিল ঘাতক রাব্বী। আর সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ২৯সেপ্টেম্বর সকালের দিকে ভাড়ার কথা বলে তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ওই অটোরিকসা নিয়ে সারাদিন বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাফেরা করেন তারা। একপর্যায়ে রাত নেমে এলে জুসের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ানো হয় তাকে। তবে বিষয়টি বুঝতে পেরে চালক মিনহাজ ঘাতক রাব্বীর হাতে কামড় দেন। এনিয়ে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনাও ঘটে। পরে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে তাকে হত্যা করা হয়। পাশাপাশি তাঁর লাশ গুম করতে ওই ফাঁকা মাঠের ধানক্ষেতের মধ্যে ফেলে দেয়া হয়। আর অটোরিকসাটি নিয়ে চলে যায় ঘাতক রাব্বী। কিন্তু অটোরিকসাটি চোরাই ভেবে কিনতে অস্বীকৃতি জানান শেরপুর শেরুয়া বটতলা বাজার এলাকার সুমন নামের ওই ক্রেতা। এতে বিপাকে পড়ে যান ঘাতক রাব্বী। শেষমেষ উপায়অন্ত না পেয়ে অটোরিকসাটি ফেলে রেখে নিজেই আইনের আশ্রয় নিতে থানায় যান।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ঘাতক রাব্বী পুলিশকে জানায়, অটোরিকসা যোগে ঘটনার রাতে তারা দু’জন বাড়ি যাচ্ছিল। পথিমধ্যে শেরপুর উপজেলার মির্জাপুর করতোয়া ব্রীজের কাছে ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন। ছুরিকাঘাত করে তাদের সবকিছু ছিনিয়ে নেয় তারা। তবে কৌশল অবলম্বন করায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় কোন রকমে রক্ষা পেয়েই ৯৯৯-এ ফোন করেন। তাদের পরামর্শে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার পর থানায় যান। কিন্তু তার এসব কথাবার্তায় নানা গড়মিল লক্ষ্য করা যায়। তাই সন্দেহভাজন হিসেবে তাকে আটক করে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। একপর্যায়ে সব খুলে বলেন। অটোচালক মিনহাজকে নিজেই ছুরিকাঘাতে হত্যার করেছে বলে স্বীকার করেন। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সুঘাট ইউনিয়নের আওলাকান্দি এলাকা থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিনতাই হয়ে যাওয়া অটোরিকসাটি উদ্ধার করা হয়। সেইসঙ্গে তার দেয়া তথ্যনুযায়ী ওই ধানক্ষেত থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে এই হত্যাকাণ্ডটি সর্ম্পকে আরও জিজ্ঞাবাদ প্রয়োজন। এজন্য আদালতে রিমাণ্ড চাওয়া হবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

 এদিকে নিহতের লাশের ময়না তদন্তের জন্য বহস্পতিবার বিকেলেই বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মামলার প্রক্রিয়া চলছিল বলে জানা গেছে।

গুরুত্বপূর্ণ সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© সর্বস্বত্ত্ব ২০১৯-২০২০
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardainikp1
ছিঃ ছিঃ নকল করোনা!