1. syedmonir1985@gmail.com : DAINIKPOTRIKA :
  2. dainikpotrikainfo@gmail.com : Central Newsroom : Central Newsroom
  3. dainikpotrikabd@gmail.com : Central newsroom : Central newsroom
  4. dainikpotrikaads@gmail.com : News Room USA : News Room USA
ভাটার মাটি রাস্তায়, জনদুর্ভোগ চরমে! তথ্য সংগ্রহকালীন সাংবাদিক লাঞ্ছিত - দৈনিক পত্রিকা
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৪:২৪ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ
ছন্দের তালে নৃত্যে আনন্দে ভারত-বাংলাদেশের অংশগ্রহনে নৃত্য ছড়াওকবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগীতা-২০২১

ভাটার মাটি রাস্তায়, জনদুর্ভোগ চরমে! তথ্য সংগ্রহকালীন সাংবাদিক লাঞ্ছিত

কুমারখালী সংবাদদাতা
  • প্রকাশ কালঃ শনিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬৬ বার দেখা হয়েছে
কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার যুদবয়রা ইউনিয়ন কেশবপুর – হাঁসদিয়া গ্রামীণ রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। স্থানীয়রা বলছেন, ট্রাক্টরে করে ইটভাটার মাটি বহনের কারণেই এসব রাস্তার এমন অবস্থা হয়েছে। ঐ এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে লাঞ্ছিত হতে হয় সাংবাদিকদের।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, ক্ষতিগ্রস্ত কাঁচা রাস্তা দিয়ে (৪০ থেকে ৫০ টি) পরিবার উপজেলায় যাতাযাত করেন। এসব রাস্তায় এখন হেঁটে চলাই কঠিন। কাঁচা রাস্তা বড় বড় গর্ত হয়ে ভেঙে গেছে। বালি, মাটি ও ভাঙা ইটের স্তূপে পরিণত হয়েছে রাস্তাগুলো। বুধবার সকালে জনদুর্ভোগ রাস্তার তথ্য ও ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করতে গেলে বিভিন্ন ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে, প্রভাবশালী সৈনিক ইট ভাটার মালিকের ছেলে রুবেল। ক্যামেরা কেড়ে রাখা সহ জীবনের হুমকি দেয় রুবেল।
সম্প্রতি গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার যুদবয়রা ইউনিয়নের প্রত্যেকটি রাস্তা সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত। ভাঙা রাস্তার ওপর দিয়ে চলছে মাটিবাহী ট্রাক্টর ট্রলি। স্থানীয় প্রভাবশালী মনোয়ার হোসেন (মনো) ও সামছুলের সৈনিক ব্রিকস ইট ভাটা সহ বিভিন্ন ইটভাটায় যাচ্ছে এসব মাটি।
এবিষয়ে গ্রামের ওহাব জানান, প্রতি বছরই ইট তৈরির মৌসুমে ভাটা মালিকরা বিভিন্ন বিল ও ফসলি জমি থেকে মাটি সংগ্রহ করেন। প্রতি ট্রাক্টর ট্রলিতে ১২ থেকে ১৫ টন মাটি থাকে। এসব ট্রাক্টরই গ্রামীণ রাস্তাগুলো ধ্বংস করে দিচ্ছে। অধিকাংশ রাস্তা এরই মধ্যে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিছু বলতে গেলে মারধর করে, জীবনের হুমকি দেয়।
প্রভাবশালী মনোয়ার হোসেন (মনো) ভাটা কর্তৃপক্ষ,অ ছেলে রুবেল অবশ্য মাটি বহনের কারণে গ্রামীণ রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। যদিও এছাড়া তাদের কোনো উপায় নেই বলে দায় এড়ানোর চেষ্টা করছেন।
এবিষয়ে মুঠোফোনে সৈনিক ব্রিকসের মালিক মনোয়ার উগ্র ভাষায় বলেন, রাস্তাটি সরকারি নয়, আমার জমিতে রাস্তা। যা মন তাই করেন!
নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক সাংবাদিক বলেন, কেশবপুর বাসীর দুর্ভোগের খবর পেয়ে তথ্য সংগ্রহে যায় আমরা। গেলে সৈনিক ভাটা মালিকের ছেলে রুবেল অসৎ আচরন করে।
এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলো, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান’ র।

গুরুত্বপূর্ণ সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© সর্বস্বত্ত্ব ২০১৯-২০২১
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardainikp1
ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । দৈনিক পত্রিকা কতৃপক্ষ
%d bloggers like this: